Connect with us

ইংল্যান্ড- দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজ

বাজবল তত্ত্ব নিয়ে এলগারের ‘মাথা ব্যথা’ দেখে খুশি স্টোকস


প্রকাশ

:

ছবি : সংগৃহীত

|| ডেস্ক রিপোর্ট ||

সাম্প্রতিক সময়ে ইংল্যান্ডের বাজবল তত্ত্ব নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন ডিন এলগার। সাউথ আফ্রিকার টেস্ট অধিনায়কের মতে, এই তত্ত্ব টেস্ট ক্রিকেটে দীর্ঘস্থায়ী হবে না। কয়েক দিন পার না হতেই এর জবাব দিয়েছেন বেন স্টোকস। এলগার যে 'বাজবল তত্ত্ব' নিয়ে কথা বলছেন, সেটা দেখেই খুশি ইংল্যান্ডের টেস্ট অধিনায়ক।

খেলোয়াড় হিসেবে শুরু থেকেই আক্রমণাত্বক দর্শনে বিশ্বাসী ছিলেন ব্রেন্ডন ম্যাককালাম। ইংল্যান্ডের কোচি হয়েও বদলায়নি তার দর্শন। এদিকে নতুন কোচের মতো নতুন অধিনায়ক স্টোকসও লড়াকু মানসিকতার। আক্রমণাত্বক মানসিকতার এই দুজনকে ইংল্যান্ডের টেস্ট ক্রিকেটের দায়িত্ব দেয়ায় অনেকের মাঝে হিতে বিপরীত হওয়ার শঙ্কাও ছিল। তবে আগ্রাসী ক্রিকেটের মাধ্যমে পাওয়া টানা জয়ে সব শঙ্কা দূর করেছেন তারা। প্রতিষ্ঠা করেছেন 'বাজবল' তত্ত্ব।

নিউজিল্যান্ডকে ঘরের মাঠে হোয়াইটওয়াশ করে যাত্রা শুরু করেছেন স্টোকস-ম্যাককালাম জুটি। এই সিরিজে নতুন ব্র্যান্ডের এক ইংল্যান্ড দল দেখেছে ক্রিকেট বিশ্ব। মাঠের ক্রিকেটে স্টোকসের আক্রমণাত্মক মনোভাব আর ড্রেসিংরুমে ম্যাককালামের মাস্টার মাইন্ড। সবমিলিয়ে এই সিরিজ দিয়ে নতুন যুগে পা রাখে ইংলিশদের টেস্ট ক্রিকেট। এরপর ঘরের মাঠে ভারতকে পাত্তায় দেয়নি ম্যাককালামের শিষ্যরা।

বাজবল তত্ত্ব বিশ্ব ক্রিকেটে অনেক প্রশংসিত হলেও এর ভবিষ্যৎ নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেন এলগার। জবাবে স্টোকস বলেন, ‘মনে হচ্ছে প্রতিপক্ষ আগ্রাসী কৌশল নিয়ে অনেক বেশি কথা বলছে। তবে আমরা শুধু আমাদের খেলাতেই মনোযোগ দিচ্ছি। আমাদের খেলার নিজস্ব একটা ধরন আছে, তাদেরও আছে। দিন শেষে এটা ব্যাট বলের লড়াই, এই লড়াইয়ে যে ভালো খেলবে তাদেরই জয়ের সম্ভাবনা বেশি। আমি এই ভেবে খুশি যে ডিন এলগার ও তার দল ‘বাজবল’ নিয়ে আগ্রহী না হয়েও এই কৌশল নিয়ে কথা বলেই যাচ্ছে।’

এদিকে ১৭ আগস্ট শুরু হতে যাচ্ছে সাউথ আফ্রিকার বিপক্ষে ইংল্যান্ডের প্রথম টেস্ট। লর্ডসে অনুষ্ঠেয় এই টেস্টের আগেও পরিকল্পনায় বদল আনবেন না বলে নিশ্চিত করলেন স্টোকস, ‘আমাদের নিশ্চিত করতে হবে, আমাদের আগ্রাসী মনোভাবে যেন পাঁচ সপ্তাহের বিরতির প্রভাব না পড়ে। শেষ চার টেস্টে আমরা যেভাবে খেলেছি , সেভাবে খেললেই আমাদের জয়ের দারুণ সম্ভাবনা থাকবে।’

ম্যাককালাম-স্টোকস জুটি দায়িত্ব নেয়ার পর থেকে খেলা চারটি টেস্টেই লক্ষ্য তাড়া করে জিতে ইংলিশরা। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে যথাক্রমে ২৭৭, ২৯৯ ও ২৯৬ রানের লক্ষ্য তাড়া করে জিতে ইংল্যান্ড। এরপর ভারতের বিপক্ষে এজবাস্টন টেস্টে লক্ষ‍্যটা আরও বেশি ছিল। ৩৭৮ রানের সেই লক্ষ্য তাড়া করে সহজেই জিতে ইংল্যান্ড।

এমন সাফল্যের পরও 'বাজবল' তত্ত্বের ভবিষ্যৎ নিয়ে প্রশ্ন তোলেন এলগার। সাউথ আফ্রিকার সাদা পোশাকের অধিনায়ক বলেন, ‘ইংল্যান্ডের নতুন কৌশল রোমাঞ্চকর। কিন্তু আমি এর (বাজবল) ভবিষ্যৎ দেখছি না। কারণ, টেস্ট ক্রিকেটে অনেক কিছু সময়ের সঙ্গে হারিয়ে যায়।’

সর্বশেষ

৩০ জানুয়ারী, সোমবার, ২০২৩

হৃদয়-জাকিরের তান্ডবে সিলেটের জয়

৩০ জানুয়ারী, সোমবার, ২০২৩

বিশ্বকাপের সেরা একাদশে স্বর্ণা

৩০ জানুয়ারী, সোমবার, ২০২৩

আগামী মাসেই কোচ আসছে, হাতুরু আসবে না এটাতো বলিনি: পাপন

৩০ জানুয়ারী, সোমবার, ২০২৩

ত্রিমুখী লড়াইয়ে সাউথ আফ্রিকা-শ্রীলঙ্কা-উইন্ডিজ

৩০ জানুয়ারী, সোমবার, ২০২৩

চতুর্থবার অস্ট্রেলিয়ার বর্ষসেরা স্মিথ, টেস্টের বর্ষসেরা খাওয়াজা

৩০ জানুয়ারী, সোমবার, ২০২৩

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসরে বিজয়

৩০ জানুয়ারী, সোমবার, ২০২৩

বিশ্বকাপে ভারতকে ভয়ডরহীন ক্রিকেট খেলতে বলছেন সৌরভ

৩০ জানুয়ারী, সোমবার, ২০২৩

'আফ্রিদির ধারে কাছেও নেই বুমরাহ'

৩০ জানুয়ারী, সোমবার, ২০২৩

ব্যাট হাতে রংপুরের জয়ের নায়ক মেহেদি

৩০ জানুয়ারী, সোমবার, ২০২৩

'এটা একটা জঘন্য উইকেট', ম্যাচ জয়ের পর হার্দিক

আর্কাইভ

বিজ্ঞাপন