Connect with us

টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ

সাদা পোশাকের রাজত্বের লড়াই


প্রকাশ

:


আপডেট

:

ছবি : সংগৃহীত

|| ডেস্ক রিপোর্ট ||

দীর্ঘ আড়াই বছর লড়াইয়ের পর অবশেষে মাঠে গড়াচ্ছে আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল। শিরোপা জয়ের লক্ষ্যে মাঠে নামতে যাচ্ছে ক্রিকেটের দুই পরাশক্তি ভারত ও নিউজিল্যান্ড। আইসিসির নতুন এই টুর্নামেন্টে প্রথমবারের মতো চ্যাম্পিয়ন হয়ে নিজেদের রাঙাতে চায় উভয় দলই।

যদিও প্রথম আসরের চ্যাম্পিয়ন দলের নাম জানা যাবে ব্যাটে-বলে পাঁচ দিন লড়াইয়ের পর। শুক্রবার ইংল্যান্ডের সাউদাম্পটনে বাংলাদেশ সময় বিকেল সাড়ে ৩টায় শুরু হবে ভারত-নিউজিল্যান্ডের মধ্যকার শিরোপার মহারণ। দল দু‘টির সাম্প্রতিক পারফরম্যান্স বলছে, ফাইনালে ভারতের চেয়ে এগিয়েই থাকবে কিউইরা। এক কথায় ফর্মের তুঙ্গে রয়েছে দলটি।

নিজেদের শেষ আট টেস্টে একটিতে ড্র বাদে সবকটিতেই জয় তুলে নিয়েছেন কেন উইলিয়ামসনরা। তবে হিসাব-নিকাশে একেবারের পিছিয়ে নেই বিরাট কোহলির ভারত। নিজেদের সাত টেস্টের পাঁচটিতেই জয়ের দেখা পেয়েছেন কোহলিরা।

পরিসংখ্যান অনুযায়ী, সাদা জার্সিতে এখন পর্যন্ত মোট ৫৯ বার মুখোমুখি হয়েছে দল দুটি। এর মধ্যে ভারতের জয় ২১ ম্যাচে। বিপরীতে ১২ ম্যাচে জয় পেয়েছে নিউজিল্যান্ড। বাকি ২৬ ম্যাচ ড্র। অবশ্য শেষ ১০ বারের দেখায় ৬টিতেই জয় তুলে নিয়েছে ভারত। আর এক ড্রয়ের পাশাপাশি নিউজিল্যান্ড জিতেছে তিন ম্যাচে।

২০২০ সালে মুখোমুখি শেষ সিরিজে ভারতকে ২-০ তে হোয়াইটওয়াশ করেছিলো কিউইরা। তবে পরিসংখ্যান যাই হোক ফাইনালের মঞ্চে কেউ কাউকে ছেড়ে কথা বলবে না। দুই দলই নিজেদের সেরা একাদশ নিয়ে মাঠে নামবে। দুই দলই থাকবে একে অপরকে দুমড়ে মুচড়ে দেয়ার মানসিকতায়।

নজর থাকবে যাদের ওপর:

টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ ফাইনালে কিউইদের মূলমন্ত্র টেস্ট র‌্যাঙ্কিংয়ের দ্বিতীয়তে থাকা অধিনায়ক উইলিয়ামসন। সদ্যই কনুইয়ের চোট কাটিয়ে উঠেছেন টেস্ট ক্রিকেটে ২৪টি সেঞ্চুরি হাঁকানো এই ডানহাতি ব্যাটসম্যান। ফাইনালে নিজের সেরাটা দিতে গত সোমবার থেকে অনুশীলনে ফিরেছেন ৩০ বছর বয়সী এই ক্রিকেটার।

ব্যাটিং আক্রমণে ব্ল্যাক ক্যাপসদের আরেক ভরসা সাদা পোশাকে ১৯টি সেঞ্চুরির মালিক অভিজ্ঞ রস টেইলর। এ ছাড়া প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করতে বোলিং আক্রমণে দলে রয়েছেন ট্রেন্ট বোল্ট ও টিম সাউথিদের মতো তারকারা। তাদের সঙ্গ দেবেন টম লাথাম ও আযাজ প্যাটেলরা।

এদিকে, এক ঝাঁক তারকায় ঠাঁসা দল নিয়ে ফাইনালে মাঠে নামছে ভারত। ফাইনালে ভারতীয়দের প্রধান হাতিয়ার ক্রিকেটের তিন ফরম্যাটেই আলো ছড়ানো ড্যাসিং ব্যাটসম্যান বিরাট কোহলি। টেস্টে ২৭টি সেঞ্চুরির দেখা পাওয়া ৩২ বছর বয়সী এই ক্রিকেটার দলটির আস্থার প্রতিকও বটে।

এ ছাড়া দলে রয়েছেন যেকোনো মুহূর্তে ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দেওয়ার ক্ষমতা রাখা হালের রোহিত শর্মা, আজিঙ্কা রাহানে, চেতেশ্বর পূজারা, ররিন্দ্র জাদেজারা। বিশেষ করে নিউজিল্যান্ডের জন্য দুর্দশার কারণ হতে পারেন টেস্টে ১৮টি সেঞ্চুরির মালিক চেতেশ্বর পূজারা।

বোলিং আক্রমণটাও বেশ সমৃদ্ধ ভারতের। ২২ গজের লড়াইয়ে বোলিংয়ে ঝড় তুলবেন জসপ্রিত বুমরাহ, ইশান্ত শর্মা, মোহাম্মদ সামি, উমেশ যাদভরা। এছাড়াও আলাদা নজর কাড়বেন বোলিং ঘূর্ণিতে প্রতিপক্ষ শিবিরে ধ্বস নামিয়ে রেকর্ড বুক ওলট-পালট করে ফেলা রবিচন্দ্রন অশ্বিন।

২০১৯ সালের আগস্ট থেকে দীর্ঘ আড়াই বছরের লড়াইয়ের পর যোগ্য দল হিসেবেই ফাইনাল নিশ্চিত করেছে কিউই ও ভারতীয়রা। যদিও করোনার কারণে ভেস্তে গিয়েছিলো অনেক দেশের দ্বিপাক্ষীয় সিরিজ। ফলে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের পয়েন্ট পদ্ধতিতে পরিবর্তন আনে আইসিসি।

পয়েন্টের হিসেব বাদ দিয়ে শতকরা হিসেবে পয়েন্ট টেবিলের নিয়ম চালু করে সংস্থাটি। শতকরা হিসেবে সবচেয়ে বেশি পয়েন্ট ছিলো ভারত ও নিউজিল্যান্ডের। টেবিলের সবার ওপরে ছিলো ভারত। ৬ সিরিজে ভারতের শতকরা পয়েন্ট ৭২ দশমিক ২। আর পাঁচ সিরিজে শতকরাতে পয়েন্ট ৭০ নিউজিল্যান্ডের।

এই আসরের ফাইনাল খেলতে পারাটা সৌভাগ্যের বলে অ্যাখায়িত করেছেন কিউই অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন। তিনি বলেন, ‘আড়াই বছর ধরে বিশ্বের নয়টি দেশ, টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ খেলছে। তাই সকলেরই বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে খেলার স্বপ্ন ছিলো। এমন ফাইনালে খেলার সুযোগ পাওয়া সৌভাগ্যের ব্যাপার এবং সতীর্থরা সেটা জানে।’

এদিকে ফাইনালে সাফল্য পেতে আশাবাদী ভারতের সহ-অধিনায়ক আজিঙ্কা রাহানে। তিনি বলেন, ‘টেস্ট ফাইনালের মতো বড় মঞ্চে প্রত্যেকেই চাইবে সাফল্য পেতে। তবে ভয়ডরহীন ক্রিকেট খেললে জেতার সুযোগ বেশি। ফলের কথা চিন্তা না করে নিজেদের সেরাটা দিতে হবে। শেষ দুই থেকে তিন বছরে যা করে আসছি আমরা, সেটা করলেই কাজ অনেকটা সহজ হয়ে যাবে। ফাইনাল ভেবে যদি এই ম্যাচ খেলতে নামি, প্রত্যেকের উপর বাড়তি চাপ পড়বে। আর পাঁচটি ম্যাচের মত যদি দেখি, তা হলে অনেক নির্ভার হয়ে খেলা যাবে।’

সম্ভাব্য একাদশ-

ভারত-

রোহিত শর্মা, শুভমান গিল, চেতেশ্বর পূজারা, বিরাট কোহলি (অধিনায়ক), আজিঙ্কা রাহানে, ঋষভ পান্ত (উইকেটরক্ষক), রবীন্দ্র জাদেজা, রবিচন্দ্রণ অশ্বিন, ইশান্ত শর্মা, মোহাম্মদ শামি, জাসপ্রিত বুমরাহ।

নিউজিল্যান্ড-

ডেভন কনওয়ে, টম লাথাম, কেন উইলিয়ামসন (অধিনায়ক), রস টেলর, হেনরি নিকলস, বিজে ওয়াটলিং (উইকেটরক্ষক), কোলিন ডি গ্রান্ডহোম, কাইল জেমিসন, টিম সাউদি, নেইল ওয়াগনার/আজাজ প্যাটেল, ট্রেন্ট বোল্ট।

সর্বশেষ

১৯ সেপ্টেম্বর, রবিবার, ২০২১

কোহলি নেতৃত্ব ছাড়ায় অবাক হয়েছেন লারা

১৯ সেপ্টেম্বর, রবিবার, ২০২১

মুম্বাইতে খেলেই বিশ্বজুড়ে ভক্ত পেয়েছি: মালিঙ্গা

১৯ সেপ্টেম্বর, রবিবার, ২০২১

কিউইদের ওপর দোষ চাপিও না, হাফিজকে ম্যাকক্লেনাঘান

১৯ সেপ্টেম্বর, রবিবার, ২০২১

অস্ট্রেলিয়ার বিমান ধরতে প্রস্তুত ব্রড

১৯ সেপ্টেম্বর, রবিবার, ২০২১

মিরপুরে ফিরেই তামিমের আগ্রাসী ব্যাটিং অনুশীলন

১৯ সেপ্টেম্বর, রবিবার, ২০২১

দ্বিতীয় ভাগে দারুণ খেলবে কলকাতা, আশাবাদী সাকিব

১৯ সেপ্টেম্বর, রবিবার, ২০২১

শুক্রবার সবকিছু বদলে গেছে, নিউজিল্যান্ডের প্রধান নির্বাহী

১৯ সেপ্টেম্বর, রবিবার, ২০২১

প্রীতি ম্যাচ আয়োজনে পিসিবির রাডারে ১০০ বিদেশি ক্রিকেটার

১৯ সেপ্টেম্বর, রবিবার, ২০২১

কালই পাকিস্তান যাচ্ছি, আমার সঙ্গে কে যাবে: গেইল

১৮ সেপ্টেম্বর, শনিবার, ২০২১

চট্টগ্রামে বৃষ্টি বাধায় খেলা হলো ৫.৪ ওভার

আর্কাইভ

বিজ্ঞাপন