Connect with us

আইপিএল

নাটারাজনকে দলে নিয়ে প্রশ্নের মুখে পড়েছিলেন শেবাগ


প্রকাশ

:


আপডেট

:

ছবি : সংগৃহীত

|| ডেস্ক রিপোর্ট ||

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) সদ্য সমাপ্ত আসরে ডেথ ওভারে দারুণ সব ইয়র্কার দিয়ে ব্যাটসম্যানদের নাভিশ্বাস তুলেছেন থাঙ্গারাসু নাটারাজন। চেন্নাইয়ের চতুর্থ ডিভিশন থেকে আইপিএল সবখানেই নিজের সামর্থ্যের প্রমাণ দিয়েছেন তিনি। আইপিএলে আলো ছড়ানো এই বাঁহাতি পেসারের ইতোমধ্যে জাতীয় দলের হয়ে অভিষেকও হয়েছে।

যেখানে অভিষেক ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডেতে ১০ ওভারে ৭০ রান দিয়ে মার্নাস ল্যাবুশেনের উইকেট তুলে নিয়েছেন। অভিষেক ম্যাচের পরেই নাটারাজনকে নিয়ে কথা বলতে গিয়ে ২০১৭ সালে আইপিলের গল্প তুলে ধরেছেন সাবেক ভারতীয় ওপেনার বীরেন্দর শেবাগ।

২০১৭ সালের ওই আসরে ৩ কোটি টাকায় তাকে দলে ভিড়িয়েছিল কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব। যে কারণে প্রশ্নের মুখে পড়তে হয়েছিল দলটির কোচ শেবাগকে। তবে তামিলনাড়ু থেকে উঠে আসা এই পেসারের বোলিংয়ের ভিডিও দেখেই তাকে দলে নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল ভারতের সাবেক এই ওপেনার।

এ প্রসঙ্গে শেবাগ বলেন, ‘আমি খুব খুশি হয়েছিলাম কারণ যখন আমি আইপিএলে নাটারাজনকে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের জন্য বেছে নিয়েছিলাম। তখন প্রত্যেকেই প্রশ্ন করছিল যে এই খেলোয়াড় এখনও ঘরোয়া ক্রিকেট খেলেনি, কেবল টিএনপিএল লিগ খেলার পরই তাকে এত টাকায় কিভাবে দলের জন্য বাছাই করা হয়েছিল?'

তিনি আরও বলেন, ‘আমি তার ভিডিওগুলো দেখেছি এবং তারপরই সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম যে নিলাম থেকে তাকে আমরা নেব। কারণ আমাদের কোনও ডেথ ওভার বোলার নেই। দুর্ভাগ্যক্রমে সেই বছর, কনুই বা হাঁটুতে আঘাতের কারণে তিনি খুব বেশি ম্যাচ খেলতে পারেননি। তবে সে যে ম্যাচটি খেলেছিল সেটি আমরা জিতেছিলাম আর অন্যগুলো হেরেছিলাম।’

ভারতীয় ক্রিকেটে খুব বেশি বাঁহাতি পেসারকে খেলতে দেখা যায়নি। ১৯৯০ এর পর থেকে এখন পর্যন্ত ১১ জন বাঁহাতি পেসারকে পেয়েছে দলটি। যেখানে সবচেয়ে বেশি আলো ছড়িয়েছিলেন জহির খান। জহির-আশিষ নেহরা এবং ইরফান পাঠানের পর তেমন ভালো মানের কোন বাঁহাতি পেসার পায়নি তারা।

সম্প্রতি জয়দেব উনাকাদ- বারিন্দার স্রান এবং খলিল আহমেদরা আশা জাগালেও প্রত্যাশা পূরণ করতে পারেননি। তাদের পরই প্রবল সম্ভাবনা নিয়ে জাতীয় দলের জার্সি গায়ে জড়িয়েছেন নাটারাজন। খলিলরা প্রত্যাশা পূরণ করতে না পারলেও তামিলনাড়ুরর এই পেসারকে নিয়ে স্বপ্ন দেখছে ভারত।

তাকে নিয়ে ইতোমধ্যে আশার কথা শুনিয়েছেন ভারতের সাবেক ব্যাটসম্যানি ভিভিএস লক্ষণ। তিনি জানিয়েছিলেন ২০২১ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ভারতের জন্য ট্রামকার্ড হতে পারেন তিনি। তাঁকে নিয়ে ভারতের ভবিষ্যৎ বোলিং আক্রমণের চিত্র আঁকছেন অনেকে।

এ প্রসঙ্গে লক্ষণ বলেছিলেন, ‘পরের বছর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ হবে এটি চূড়ান্ত। যদি আপনি ভারতীয় দলের দিকে তাকান, তাহলে দেখবেন ডেথ ওভারের জন্য ভালো একজন দরকার। এটি ভালো দিক যে মোহাম্মদ শামি-নবদীপ সাইনিরা ডেভ ওভারে আত্মবিশ্বাস নিয়ে বল করে। তবে বাঁহাতি হিসেবে নাটারাজন এক্স-ফ্যাক্টর হতে পারে।’

 

 

সর্বশেষ

২৪ জানুয়ারী, রবিবার, ২০২১

আরেকটি হোয়াইওয়াশ নাকি উইন্ডিজদের ঘুরে দাঁড়ানো

২৪ জানুয়ারী, রবিবার, ২০২১

বড় রানের খোঁজে ওয়েস্ট ইন্ডিজ

২৪ জানুয়ারী, রবিবার, ২০২১

শাস্ত্রীর মতো হতে চান সুন্দর

২৪ জানুয়ারী, রবিবার, ২০২১

রুটের রান ফোয়ারা থামছেই না

২৪ জানুয়ারী, রবিবার, ২০২১

দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজ আমার ভবিষ্যৎ নির্ধারণ করবে না: মিসবাহ

২৪ জানুয়ারী, রবিবার, ২০২১

বাংলাদেশ গেমসে খেলবে নারী ক্রিকেট দল

২৪ জানুয়ারী, রবিবার, ২০২১

পাকিস্তানের চূড়ান্ত দলে ৬ নতুন মুখ

২৪ জানুয়ারী, রবিবার, ২০২১

প্রতিপক্ষ ভারত-অস্ট্রেলিয়া হলেও প্রস্তুত থাকতেন হাসান

২৪ জানুয়ারী, রবিবার, ২০২১

ভেটরির বিকল্প খুঁজছে বাংলাদেশ

২৪ জানুয়ারী, রবিবার, ২০২১

হোয়াইটওয়াশে চোখ তামিমের

আর্কাইভ

বিজ্ঞাপন